লৌহজংয়ে বিএনপি’র মিছিলে পুলিশের সাথে ধস্তাধস্তি॥ আহত ১০ ॥ আটক ১

মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি

মুন্সীগঞ্জের লৌহজংয়ে দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধগতির প্রতিবাদে বিএনপির মিছিলে পুলিশের সাথে ধস্তাধস্তি হয়েছে। এ সময় লাঠি চার্জ, ১০ জন আহত ও এক কর্মীকে আটক করার অভিযোগ করেছে বিএনপি। গতকাল শনিবার দুপুর ১২টার দিকে উপজেলার ঘোরদৌড় বাজারে এ ঘটনা ঘটে। তবে পুলিশ বলছে লাঠিচার্জ নয়, প্রতিহত করা হয়েছে মিছিলটি। এদিকে সিরাজদিখানেও একই প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে সিরাজদিখান উপজেলা বিএনপি।
জানা যায়, দ্রব্যমূল্যের উর্ধগতির কারণে গতকাল সকাল ১১টায় বিএনপি ঘোড়দৌড় বাজারে অবস্থিত কার্যালয়ের সামনে প্রতিবাদ সমাবেশের আয়োজন করে লৌহজং উপজেলা বিএনপি। পরে দুপুর ১২টার দিকে সমাবেশ শেষে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করার মুহুর্তে পুলিশ অতর্কিতে মিছিলটি প্রতিহত করে। এ সময় বিএনপির নেতাকর্মীদের সাথে পুলিশের ধস্তাধস্তি ও বাকবিতণ্ডা হয়।
উপজেলা বিএনপির সদস্য সচিব হাবিবুর রহমান অপু চাকলাদার জানান, পুলিশ শান্তিপূর্ণ মিছিলে হামলা চালিয়েছে। পুলিশের লাঠিচার্জে বিএনপির অন্তত ১০ জন কর্মী আহত হয়েছে। একজনকে আটক করে থানায় নিয়ে গেছে পুলিশ।
এদিকে সোসাল মিডিয়া ফেস বুকে একটি ভিডিও ছড়িয়ে পড়লে ভিডিওটিতে দেখায় যায় পুলিশের সঙ্গে বিএনপি নেতা কর্মীদের ধস্তাধস্তি ও বাকবিদন্ডতা হচ্ছে। লাঠি চার্জের কোন কিছু দেখা যায়নি।
এর পূর্বে সকাল ১১টায় উপজেলা বিএনপির আহবায়ক মো. শাহজাহান খানের সভাপতিত্বে ও সদস্য সচিব হাবিবুর রহমান অপু চাকলাদারের সঞ্চালনায় প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন বিএনপির কেন্দ্রীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট আবদুস সালাম আজাদ, জেলা বিএনপির আহবায়ক কমিটির সদস্য ওমর ফারুক অবাক, সদস্য ইউসুফ আজাদ চঞ্চল, জেলা জাসাসের সদস্য সচিব আশরাফ হোসেন আশু, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সদস্য সচিব জহিরুল ইসলাম দোলন প্রমুখ। বক্তারা দ্রব্যমূল্যের নিয়ন্ত্রণের পাশাপাশি আওয়ামী লীগ সরকারের পদত্যাগ দাবি করেন।
লৌহজং থানার ওসি আব্দুল্লাহ আল তায়াবীর জানান, পুলিশ কোন লাঠিচার্জ করেনি। এমন প্রমান দিতে পারবেনা কেউ। বিএনপির নেতারা বলছিল তারা পার্টি অফিসে প্রতিবাদ করবে, মিছিল করার কথা ছিল না। কিন্তু সমাবেশ শেষে প্রধান সড়কে মিছিলে নামে বিএনপি। এ সময় শান্তিশৃঙ্খলা বজায় রাখতে মিছিলটি প্রতিহত করা হয়। আতাউর রহমান নামে বিএনপি’র এক কর্মীকে আটক করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে পুলিশ এ্যাসল্ট মামলা হচ্ছে।