সাড়ে ৩ শ’ মন ধান নিয়ে পদ্মা সেতুর কাছে ট্রলার ডুবি, নিখোঁজ ২

মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি॥

মুন্সীগঞ্জের লৌহজংয়ের পদ্মায় সাড়ে ৩ শ’ মন ধানসহ একটি ট্রলার ডুবে গেছে। এসময় ট্রলারটিতে ১৩ জন কৃষাণ ও ২জন মাঝি-মাল্লাসহ মোট ১৫ ব্যক্তি ছিল। ১৩ জন সাঁতার কেটে তীরে উঠতে পারলেও ২ জন নিখোঁজ হয়েছে। নিখোঁজ ২ ব্যক্তি হলো হেলাল খলিফা (৩৮) ও দাদন মাদবর (২৮)। দাদন মাদারীপুর জেলার শিবচর উপজেলার রাজাচর মোল্লাকান্দির শফি মাদবরের পুত্র এবং হেলার একই এলাকার মান্নান খলিফার পুত্র। শনিবার ভোরে পদ্মা সেতুর অদূরে মাঝ পদ্মায় এ ট্রলার ডুবির ঘটনা ঘাটে।
জীবিত উদ্ধার হওয়া দাদনের বড় ভাই বাবুল ফকির জানান, তারা ১৩ জন কৃষাণ গত ২৯ দিন ধরে শ্রীনগরের আড়িয়ল বিলে ভাগিদার হিসেবে ধান কটেছেন। নিজেদের ভাগ হিসেবে সাড়ে ৩ শ’ মন ধান পেয়েছেন তারা। সেই ধান নিয়ে গতকাল শনিবার সকাল ৬টার দিকে লৌহজংয়ের শিমুলিয়া ঘাট থেকে একটি ট্রলারে তারা শিবচরের কাঁঠালবাড়ি ঘাটের উদ্দেশ্যে রওনা দেয়। এ সময় তারা ১৩ জন ও ২জন মাঝি-মাল্লাসহ মোট ১৫ জন ছিল ট্রলারটিতে। কিছু দূর যাবার পর পদ্মা সেতুর অদূরে মাঝ পদ্মায় ট্রলারটি ঝড়ের কবলে পড়ে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলে। প্রবল বাতাস আর স্রোত ট্রলারটিকে টেনে নিয়ে যাবার সময় পদ্মা নদীর মাঝে পদ্মা সেতুর নির্মাণাধীন জাতীয় বিদ্যুৎ গ্রিডের টাওয়ারের সাথে ধাক্কা লেগে ট্রলারটি ডুবে যায়। এসময় বাবুলসহ ১৩ জন সাঁতরে তীরে উঠতে পারলেও হেলাল ও দাদন নিখোঁজ হন।
তিনি কান্না জনিত কন্ঠে আরো বলেন, ভাই-রে আগামো সব শেষ হইয়া গলো। গত ২৯ দিন অনেক কষ্ট করইরা পানির মধ্যে ধান কাটছি। কত স্বপ্ন নিয়া সবাই বাড়ি যাইতেছিলাম। কিন্তু পদ্মা আমাগো সব কাইরা নিলো। স্বপ্ন স্বনই থাইক্কা গেলো। ভাইডাও নিখোঁজ হইয়া গেছে। জানিনা ওগো দুইজনের ভাগে কি আছে।
মাওয়া নৌ পুলিশ ফাঁড়ির আইসি মো. আবু তাহের জানান, ডুবে যাওয়া ট্রলারটিতে মোট ১৫ জন লোক ছিল। তারা ধান নিয়ে শিমুলিয়া থেকে কাঁঠাল বাড়ি যাচ্ছিল। পথে মাঝ পদ্মায় ঝড়ের কবলে পড়ে ট্রলার ডুবে ২ জন নিখোঁজ হন। নিখোঁজদের সন্ধানে শ্রীনগর ফাঁয়ার সার্ভিসের একটি টিম, কোষ্ট গার্ড ও নৌ পুলিশ ও নিখোঁজদের স্বজনরা কাজ করছে। ডুবে যাওয়া ট্রলার ও নিকোঁজ ব্যক্তিদের এখনও কোন সন্ধান পাওয়া যায়নি। উত্তাল পদ্মায় উদ্ধার অভিযান পরিচালনা করা কষ্টকর হয়ে পড়েছে। তবে অভিযান অবাহত আছে।#