সিরাজদিখানে ভয়াবহ লোডশেডিংয়ে জনজীবন অতিষ্ঠ

আরিফ হোসেন হারিছ, সিরাজদিখান (মুন্সীগঞ্জ)
মুন্সীগঞ্জের সিরাজদিখানে এখন বিদ্যুতের ভয়াবহ লোডশেডিং চলছে। দিনে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে অন্তত ৮-১০ ঘণ্টা পর্যন্ত লোডশেডিং হচ্ছে। তীব্র তাপদহনের মধ্যে এতো অধিক লোডশেডিংয়ে জনজীবন অতিষ্ঠ করে তোলছে। শিক্ষার্থীদের পড়াশুনাসহ শিল্প-কারখানার উৎপাদন ব্যাহত হচ্ছে। সামান্য ঝড় বৃষ্টি হলেই বিদ্যুত সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দীর্ঘ সময় বিদ্যুৎ বন্ধ করে রাখে পল্লী বিদ্যুৎ কর্তৃপক্ষ। দীর্ঘ সময় ধরে বিদ্যুৎ না থাকায় গ্রাহকরা ভোগান্তিসহ আর্থিক ক্ষতির সম্মুক্ষিন হচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

ভুক্তভোগীরা জানায়, দীর্ঘ সময়ের জন্য বিদ্যুত না থাকার কারণে ফ্রিজে থাকা মাছ, মাসং এবং কাচা তরকারী পচে যাচ্ছে। স্কুল কলেজ পড়ুয়া শিক্ষার্থীরা ঠিকমত পড়াশোনায় মনযোগী হতে পারছেনা। লোডশেডিংয়ের চরম এ ভোগান্তি থেকে বাঁচতে পল্লী বিদ্যুতের সংশ্লিষ্ট উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষপে কামনা করেছেন ভুক্তভোগীরা।

উপজেলার লতব্দী ইউনিয়ন আওয়ামী যুবলীগের সভাপতি আলাউদ্দিন মাদবর বলেন, গত কয়েকদিন যাবত আমাদের এলাকায় লোডশেডিংয়ের কারণে ফ্রিজে রাখা মাছ-মাংস তরিতরকারী নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। বিদ্যুৎ না থাকার কারণে রাতে চলাচলে সমস্যা হচ্ছে। ইলেকট্রিক যন্ত্রপাতি চার্জ দিতে পারছিনা। সমস্যা জানার জন্য অফিসে ফোন দিলেও ফোন ধরছেনা। একটু বৃষ্টি আসলেই বিদ্যুৎ দীর্ঘ সময়ের জন্য চলে যায়। বিদ্যুৎ নেই কেন?- জানতে চাইলে তারা বিভিন্ন বাহানা দেখায়। আমরা এর সমাধান চাই।

এব্যাপারে সিরাজদিখান পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির জোনাল অফিসের ডিজিএম খন্দকার মাহমুদুল হাসান জানান, জাতীয় গ্রিডে সমস্যা হওয়ায় আমরা বিদ্যুৎ কম পাচ্ছি। তাই একটু সমস্যা হচ্ছে।#