সিরাজদিখানে সাংবাদিক হারিছের উপর সন্ত্রাসী হামলা, আটক-১

সিরাজদিখান (মুন্সীগঞ্জ)প্রতিনিধি:
মুন্সীগঞ্জের সিরাজদিখানে সংবাদ প্রকাশে জেরে দৈনিক লাখোকন্ঠ প্রত্রিকার সিরাজদিখান প্রতিনিধি সাংবাদিক আরিফ হোসেন হারিছের উপর সন্ত্রাসী হামলা হয়েছে। আজ সোমবার ১৯ সেপ্টেম্বর দুপুর ২টার দিকে সিরাজদিখান বাজারে মা জননী বিরানি হাউজের সামনে এই সন্ত্রাসী হামলার ঘটনা ঘটে। ঘটনার পরপরই সিরাজদিখান থানা পুলিশ অভিযান পরিচালনা করে একজনকে আটক করে। আহত সাংবাদিককে সিরাজদিখান উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।
আহত সাংবাদিক হারিছ জানায়, গত ৩১শে আগস্ট একটি মামলায় কামরুজ্জামান মনিরকে (কামরুস) গ্রেপ্তার করে থানা পুলিশ। এই ঘটনা ১ই অক্টোবর সাংবাদিক আরিফ হোসেন হারিছ লাখোকন্ঠ পত্রিকা একটি সংবাদ প্রকাশ করে। সে মামলায় জামিনে এসে তার সাথে শত্রুতা পোষন শুরু কওে মনির। আজ ১৯শে সেপ্টেম্বরে মা জননী বিরিয়ানী হাউজের সামনে রাস্তার উপর দাড়ানো অবস্থায় পেয়ে কামরুজ্জামান ও আবু বক্করসহ ৪/৫জন সাংবাদিক হারিছের উপর অতর্কিত ভাবে হামলা করে। এ সময় তারা বলে “তর কলমের জোর কতটুকু, আজকে তর হাত কেটে ফেলব” এ কথা বলে এলেপাথারী কিল ঘুষি ও লাথি মেরে শরীরের বিভিন্ন স্থানে নীলা ফুলা জখম করে। এসময় সাংবাদিক হারিছের পকেটে থাকা নগদ ৭ হাজার ৮শত টাকা ও গলায় থাকা ০৮ (আট) আনা ওজনের একটি স্বর্ণের চেন ছিনিয়ে নেয় সন্ত্রাসীরা।
তিনি আরও জানান, রামানন্দ গ্রামের মালেকের ছেলে কামরুজ্জামান মনির এলাকার একটি চিহ্নিত সন্ত্রাসী। তার বিরুদ্ধে সিরাজদিখান থানায় একাধিক মামলাও রয়েছে। সে এলাকায় দীর্ঘদিন ধরে প্রকাশ্যে বিভিন্ন লোককে ভয় ভীতি সৃষ্টি করে আসছে। সম্প্রতি একটি মামলায় পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার করলে আমি সেই সংবাদটি আমার পত্রিকায় প্রকাশ করি। জামিনে বের হয়ে সে বিভিন্ন জায়গায় আমার বিরুদ্ধে হুমকি-ধামকি প্রদান করে আসছিল। আজকে বাজারের হোটেলের সামনে একা পেয়ে পরিকল্পিত ভাবে আমার উপর হামলা করে।
সিরাজদিখান থানায় পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মোঃ আজগর হোসেন বলেন, অভিযোগের প্রেক্ষিতে আমরা কামরুজ্জামন মনির নামে একজনকে আটক করেছি ও পলাতক আসামিকে গ্রেপ্তার চেষ্টা চলছে।